বাংলা ডট এসই (Bangla.se) দেশের বাইরে ইন্টারনেটে পঠিত সবচেয়ে জনপ্রিয় বাংলা সংবাদ ও মিডিয়া মাধ্যম। আপনার খবর, বিজ্ঞাপন ও মিডিয়া সংযোগে আমাদেরকে ইমেইল করুন।   
ইউরোপ, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, এশিয়াঃ যেখানেই বাঙালী, সেখানেই আমরা আপনার পাশে আপনার খবর নিয়ে।   
বাংলা ডট এসই (Bangla.se) দেশের বাইরে ইন্টারনেটে পঠিত সবচেয়ে জনপ্রিয় বাংলা সংবাদ ও মিডিয়া মাধ্যম। আপনার খবর, বিজ্ঞাপন ও মিডিয়া সংযোগে আমাদেরকে ইমেইল করুন।   
ইউরোপ, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, এশিয়াঃ যেখানেই বাঙালী, সেখানেই আমরা আপনার পাশে আপনার খবর নিয়ে।   
বাংলা ডট এসই (Bangla.se) দেশের বাইরে ইন্টারনেটে পঠিত সবচেয়ে জনপ্রিয় বাংলা সংবাদ ও মিডিয়া মাধ্যম। আপনার খবর, বিজ্ঞাপন ও মিডিয়া সংযোগে আমাদেরকে ইমেইল করুন।   
ইউরোপ, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, এশিয়াঃ যেখানেই বাঙালী, সেখানেই আমরা আপনার পাশে আপনার খবর নিয়ে।   
বাংলা ডট এসই (Bangla.se) দেশের বাইরে ইন্টারনেটে পঠিত সবচেয়ে জনপ্রিয় বাংলা সংবাদ ও মিডিয়া মাধ্যম। আপনার খবর, বিজ্ঞাপন ও মিডিয়া সংযোগে আমাদেরকে ইমেইল করুন।   
ইউরোপ, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, এশিয়াঃ যেখানেই বাঙালী, সেখানেই আমরা আপনার পাশে আপনার খবর নিয়ে।   
বাংলা ডট এসই (Bangla.se) দেশের বাইরে ইন্টারনেটে পঠিত সবচেয়ে জনপ্রিয় বাংলা সংবাদ ও মিডিয়া মাধ্যম। আপনার খবর, বিজ্ঞাপন ও মিডিয়া সংযোগে আমাদেরকে ইমেইল করুন।   
ইউরোপ, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, এশিয়াঃ যেখানেই বাঙালী, সেখানেই আমরা আপনার পাশে আপনার খবর নিয়ে।   
মঙ্গলবার, ২৪ এপ্রিল 2018/Bangla.se is the First & most popular Online News & Entertainment from EU. আমাদের সাথে থাকুন এবং সারা বিশ্বে আপনার খবর সবার কাছে উপস্থাপন করুন। Share your News with us. Email: news@bangla.se

শিরোনামঃ
ক্রিকেটারদের ডেকে সতর্ক করলেন পাপন PDF Print E-mail

519A1013বিকাল ৩টা থেকে অনুশীলন শুরু হওয়ার কথা। আড়াইটায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হওয়ার কথা নাসির হোসেনের। আড়াইটা পেরিয়ে ৩টা বেজে যায়, নাসির তো দুরে থাক, বাংলাদেশ দলের কেউই আসছেন না। এরপর অপেক্ষার পালা সাংবাদিকদের। সময় গড়িয়ে চারটা, সাড়ে চারটা পার হয়ে যায়, ক্রিকেটাররা অনুশীলনেও নামছেন না। অবশেষে সাংবাদিকদের অপেক্ষার পালা শেষ হলো, পৌনে পাঁচটার দিকে। সবাইকে অবাক করে দিয়ে সাংবাদিকদের সামনে কোন ক্রিকেটার নয়, আসলেন স্বয়ং বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন।

পাকিস্তান আর ভারতের বিপক্ষে অসাধারণ দুটি সিরিজ খেলার পর আত্মবিশ্বাসে টগবগ করে ফুটছিলেন যেন মাশরাফি বিন মর্তুজারা। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এসে সেই আত্মবিশ্বাস নিমেষে হারিয়ে গেলো! প্রোটিয়াদের মোটেও পড়তে পারছে না বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। দুটি টি২০’র পর প্রথম ওয়ানডেতেও শোচনীয় হার। স্বভাবতই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের ন্যায় চিন্তিত হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপনও।

কারণ ক্ষতিয়ে দেখতে শনিবার সারাদিন জনে জনে বৈঠক করেছেন তিনি। বের করার চেষ্টা করেছেন, আসলেই কি সমস্যা হচ্ছে বাংলাদেশ দলের। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি জানালেন সে কথাই। বললেন, ‘বেশ কিছু বিষয়ে ক্রিকেটারদের সতর্ক করে দিয়েছেন। আবার বেশ কিছু বিষয়ে অনুপ্রানিতও করেছেন। ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথা বলেছেন, অভয় দিয়েছেন।’

সারাদিন ট্যকনিক্যাল কমিটি, নির্বাচক কমিটি, টিম ম্যানেজমেন্ট, কোচ, অধিনায়কসহ- বিভিন্নজনের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন বিসিবি সভাপতি। এরপর আড়াইটার দিকে তিনি বসেছেন দলের সকল ক্রিকেটারের সঙ্গে। বিসিবি প্রধানের সঙ্গে বৈঠক শেষেই অনুশীলন করতে মাঠে নেমেছেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। ক্রিকেটারদের সঙ্গে কি কথা হয়েছে, কিংবা সারাদিন বৈঠক করার পর কি জানতে পেরেছেন, সেটা জানানোর জন্যই মিডিয়ার সামনে নিজেই উপস্থিত হয়ে যান বিসিবি প্রধান।


বিসিবি সভাপতি জানান, টেকনিক্যাল কমিটির কাছে দলের পরাজয় থেকে বের হয়ে আসার করনীয় সম্পর্কে জানতে চান তিনি। টেকনিক্যাল কমিটি বিসিবি সভাপতিকে কিছু পরামর্শ দেন। নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ফাইটই করতে পারছে না দল। শক্তিশালী টেকনিক্যাল কমিটির কাছে তাই তাদের অভিমত জানতে চেয়েছিলাম। বোলিং এবং ফিল্ডিংয়ে ভালো করছি; কিন্তু ব্যাটসম্যানরা কেন রান করতে পারছে না। গ্যাপ বের করতে পারছে না- এসব বিষয় সম্পর্কে করনীয় জানতে চেয়েছি তাদের কাছে। তারাও আমাকে কিছু পরামর্শ দিয়েছেন।’

কি পরামর্শ দিয়েছেন? জানতে চাইলে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘টেকনিক্যাল কমিটি কিছু পরিবর্তনের সুপারিশ করেছে। তারা আমার কাছে যে প্রস্তাব দিয়েছেন- এর মধ্যে দুটো অপশন এসেছে। আমি কোচ, ম্যানেজার এবং অধিনায়ককে সেটা জানিয়েছি। ওরাও ওদের প্রস্তাব দিয়েছে। আজকে রাতে অথবা কাল সকালে এ বিষয়গুলো চূড়ান্ত হবে। বোর্ড মিটিংয়ের আগে আমরা টেকনিক্যাল কমিটির সঙ্গে আবারও বসব।’

খেলোয়াড়দের সঙ্গে বৈঠকে কি বলেছেন বিসিবি সভাপতি? এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘ওদেরকে এই কথাগুলো বলার জন্য ডেকেছি যে, ভয়ের কোনো কারণ নেই। তোমরা ভালোই খেল, এই মুহূর্তে হয়ত ভালো হচ্ছে না। মুশফিককে বললাম, থিতু হওয়ার পর তুমি ওই শটটা আরেকটু পরেও খেললে পারতা। তুমি মরে রেখ, তোমার ওপর দায়িত্ব অনেক বেশি। সৌম্য সরকারকে বলেছি, সেট হয়ে গেলে একজন ব্যাটসম্যানের দায়িত্ব অনেক বেড়ে যায়। ভয় পাওয়ার মত তো কোনো কারণ নেই।’

কিছু বিষয়ে যে ক্রিকেটারদের সতর্ক করে দিয়েছেন সেটাও জানালেন বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেন, ‘কিছু কিছু জায়গায় সতর্ক করে দিতে হয়, আমি সে জায়গাগুলোয় ক্রিকেটারদের সতর্ক করে দিয়েছি। কিছু জায়গায় অলসতা আছে বা অন্যদিকে মনোযোগ সরে যাওয়ার ব্যাপার আছে; সেগুলো আমি নির্দিষ্টভাবে বলে দিয়েছি। ক্রিকেটারদের বলেছি, ভালো করার সম্ভাবনা আছে কিন্তু একটু মন খারাপ হয়ে যাচ্ছে, রান পাচ্ছি না- এসব নিয়ে ঘাবড়ানোর কিছু নেই। এসব বলে একটু অনুপ্রাণিত করার দরকার যে, সেটাও করেছি।’

টেকনিক্যাল কমিটি চেয়েছেন একজন বোলারের পরিবর্তন। দলীয় সমন্বয়ে ১১ জনের মধ্যে ১০জনই ঠিক আছে। একজন বোলার পরিবর্তন করতে হবে। সেটা কি কোন স্পিনার নাকি পেসার? তা নিশ্চিত করেননি পাপন। তবে সম্ভাব্য পরিবর্তণ যে রুবেল হোসেনকে নিয়ে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। পাপন বলেন, ‘একাদশের ১০ জন ঠিক হয়ে গেছে। একাদশ ঠিক করা অধিনায়ক এবং কোচের ব্যাপার। এর আগে আমরা একাদশ ঠিক করতে হস্তক্ষেপ করিনি। এখনও করছি না। ১০জন নিয়ে কারো কোনো দ্বিমত নেই, একটা পজিশন নিয়ে যেহেতু মতপার্থক্য আছে, কোচ এররকম বলছে, অধিনায়ক এরকম চায়, সবারটাই শুনেছি। সুতরাং, এ নিয়ে কাজ করার বাকি আছে। আগামীকালই ১১ নম্বরটা ঠিক হয়ে যাব। সেটা রুবেলও হতে পারে কিংবা কোন স্পিনারও হতে পারে।

বিসিবি সভাপতি আরও বলেন, ‘তাছাড়া বিশ্বকাপ থেকে আমরা স্পোটিং উইকেটে খেলে আসছিলাম। কিন্তু এখন স্পিন সহায়ক উইকেকেটে খেলায়ও কিছু সমস্যা হতে পারে।’

প্রতিটি সিরিজের আগে দর্শকরা রোদ উপেক্ষা অনেক কষ্ট করে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিটি সংগ্রহ করেন। কিন্তু এ বিষয়টা বোর্ড প্রেসিডেন্ডের মোটেও ভালো লাগেনি। তাই আগামী সিরিজ থেকে অললাইনের টিকিট বিক্রির ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি। একই সঙ্গে অ্যাক্রিডেডশন কার্ড নিয়ে কোনো সমস্যা হলে সেটাও খতিয়ে দেখা হবে বলে আশ্বস্ত করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

উল্লেখ্য, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন ক্রিকেটার নাসির হোসেনও।

 

 

বাংলাদেশ...                                                            

বিনোদন...                                                              

প্রবাশ...                                                                  

বিশ্ব...                                                                     

কোরআন/ হাদিস বানী

সূরা বাকারা

এবং নিশ্চয় তুমি তাদেরকে অন্যান্য লোক এবং মুশরিকদের অপেক্ষাও অধিকতর আয়ু-আকাক্সক্ষী পাবে; তাদের মধ্যে প্রত্যেকে কামনা করে যেন তাকে হাজার বছর আয়ু দেয়া হয় এবং ঐরূপ আয়ু প্রাপ্তিও তাকে শাস্তি থেকে মুক্ত করতে পারবে না এবং তারা যা করছে আল্লাহ তা দেখেন।

Tarique Rahman's Speech | York Hall, London | 29 September 2014